ইউনিয়ন জামায়াত আমিরের ‘অবসরে’ সংবর্ধনা দিলেন আ. লীগ সম্পাদক! |

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় ইউনিয়ন জামায়াতের আমিরকে আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যানের দেওয়া সংবর্ধনা নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। উপজেলার দিলপাশার ইউনিয়নের সাবেক জামায়াতের আমির ও ইউনিয়নের পাঁচ বেতুয়ান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফজলুর রহমানকে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে সংবর্ধনা দেন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অশোক কুমার ঘোষ। 

জানা যায়, উপজেলার দিলপাশার ইউনিয়নের পাঁচ বেতুয়ান গ্রামের ফজলুর রহমান গ্রামের বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকরি শুরু করেন। চাকরি চলাকালীন সময়ে তিনি দিলপাশার ইউনিয়ন জামায়াতের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরে ২০১৪ সালে দেশের সকল বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করা হলে তিনি দল থেকে অব্যাহতি নেন। তবে এরপরেও এলাকায় জামাতকে সুসংগঠিত করার কাজ চালিয়ে যান ফজলুর রহমান। এরপর থেকে তিনি সুবিধা আদায়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তোলেন। এক পর্যায়ে এ মাসের প্রথম দিকে তিনি চাকরি থেকে অবসরে যান। এ উপলক্ষে মঙ্গলবার বিকেলে বিদ্যালয়ে ফজলুর রহমানকে সংবর্ধনা দেন ইউপি চেয়ারম্যান অশোক কুমার ঘোষ। এ সময় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুস সাত্তার উপস্থিত ছিলেন। 

এদিকে সংবর্ধনা দেওয়ার পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এলাকার আওয়ামী লীগসহ অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা তুমুল সমালোচনা শুরু করেন।

পাঁচ বেতুয়ান ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি রশিদ সরকার বলেন, যিনি এখনো সরকার এবং আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে কথা বলেন, সরকারের উন্নয়নকে মেনে নিতে পারেন না, তাকে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যানের সংবর্ধনা দেওয়ায় দলীয় নেতাকর্মীরা অত্যন্ত লজ্জিত হয়েছে। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই।

এ বিষয়ে চেয়ারম্যান অশোক কুমার ঘোষ বলেন, ফজলুর রহমান অনেক আগে জামায়াত করতেন। এখন তিনি নিষ্ক্রিয় এবং ইউনিয়নে কোনো জামাতের নেতাকর্মী নাই। তাই প্রধান শিক্ষক হিসেবে তাঁকে সংবর্ধনা দেওয়া দোষের কিছু মনে করি না।

দিলপাশার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শহীদুল ইসলাম বলেন, সামনে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। তাই সকলকে নিজের পক্ষে নিতে জামাত-বিএনপি নিয়ে আর ভেদাভেদ দেখছে না অশোক কুমার ঘোষ। 


Source: kalerkantho

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × 1 =