সবাইকে ছুটি দিয়ে শিশুকে ধর্ষণ করেন মাদরাসাশিক্ষক! |

মাদরাসাশিক্ষক মৌলভী বিল্লাল হোসেন

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে প্রথম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল সোমবার বিকেলে উপজেলার বক্সগঞ্জ ইউনিয়নের শুভপুর ওয়াছাকিয়া কুরআনিয়া মাদরাসা ও এতিমখানায় এ ঘটনা ঘটে। ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ মাদরাসাশিক্ষক মৌলভী বিল্লাল হোসেনকে আটক করেছে। তিনি খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি উপজেলার চেংগুছড়া গ্রামের আবুল কালামের ছেলে।

শিশুটিকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, শিশুটি গত দুই বছর যাবৎ ওই মাদরাসার লেখাপড়া করছে। গতকাল সোমবার বিকেলে শিক্ষক মৌলভী বিল্লাল হোসেন সকল শিক্ষার্থীকে ছুটি দিয়ে শিশুটিকে একটি কক্ষে নিয়ে ধর্ষণ করেন। শিশুটি বাড়ি গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে সে পরিবারের সদস্যদের এ ঘটনা খুলে বলে।

এ ঘটনায় শিশুটির পিতা বাদী হয়ে শিক্ষক মৌলভী বিল্লাল হোসেনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

নাঙ্গলকোট থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন খন্দকার বলেন, এলাকাবাসীর মাধ্যমে ধর্ষণের বিষয়টি জানার পর মাদরাসায় গিয়ে ধর্ষককে আটক করা হয়। শিশু শিক্ষার্থীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার শিশুটির পিতা বাদী হয়ে নাঙ্গলকোট থানায় ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। আসামিকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।


Source: kalerkantho

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

11 + one =