বানিয়াচংয়ে বোরো ধানের সর্বনাশ! |

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলায় বোরো ধানের জমিতে পরাগায়ণ সমস্যা ও লেদা পোকার আক্রমণে দিশেহারা হয়ে পড়ছেন কৃষকরা। উপজেলার বিভিন্ন হাওরে বোরো চাষ করে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা আহাজারি করছেন। আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে বোরোর আগাম জাতের ধানকাটা পুরোদমে শুরু হওয়ার কথা। এর আগেই আবহাওয়াজনিত কারণে পরাগায়ণ না হওয়া ও লেদা পোকার আক্রমণে চলতি বছরে অনেক কৃষকই ধান কেটে গোলায় তুলতে পারবেন না বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। 

ছয় মাসের কষ্টের ফসল গোলায় তোলার আশায় স্বপ্ন দেখছেন কৃষক। কৃষকের সেই স্বপ্নের ঘোরে হানা দিয়ে সর্বনাশ করে চলেছে অযাচিত লেদাপোকা ও আবহাওয়াজনিত পরাগায়ণ সমস্যা। গত এক সপ্তাহ ধরে লেদা পোকা থোড় ও আধাপাকা ধানের ছড়া কেটে দিয়ে একরের পর একর জমির ফসলের সর্বনাশ করে চলেছে। একই সময়ে আবহাওয়াজনিত সমস্যার কারণে অনেক হাওরে পরাগায়ণ না হওয়ায় ধানের ছড়া বিবর্ণ রং ধারণ করে মরে যাচ্ছে।

সরেজমিনে উপজেলার ইসলামপুর মৌজার হাওর, রাজিমপুর মৌজার গুজির হাওর, মকার হাওর, আহমদপুর মৌজার হাওরসহ বেশ কয়েকটি হাওরে ঘুরে পোকার আক্রমণ ও পরাগায়ণ সমস্যা দেখা যায়। উপজেলা কৃষি অফিস থেকে জানানো হয়েছে, বানিয়াচংয়ের বিভিন্ন হাওরে প্রায় ৫ হেক্টর জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের দাবি, ক্ষতির জমির পরিমাণ আরও বেশি।

ইউসুফপুর গ্রামের কৃষক মতুর মিয়া জানান, ইসলামপুর ও রাজীমপুর হাওরে ৪০ কেদার জমি চাষ করেছিলেন। বৈশাখ মাসের প্রথম সপ্তাহে ধান কাটার জন্য প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিলেন। কিন্তু তার সকল জমিই লেদা পোকার আক্রমণে নষ্ট হয়ে গেছে। ঋণ ও ধারদেনায় জমি চাষ করে সর্বনাশা পোকার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। কৃষক মতুর মিয়া নিজের পরিবারের খাবার সংস্থান কীভাবে করবেন সে চিন্তায় দিশেহারা হয়ে পড়েছেন, তাকে জমির পাশে বসে বুক চাপড়ে বিলাপ করতে দেখা যায়।

আহমদপুর হাওরের কৃষক মোহাদ্দিস মিয়া জানান, আহমদপুর হাওরে লেদা পোকার আক্রমণে অনেক কৃষকের বোরো জমি নষ্ট হয়ে গেছে। তৈয়ব আলী জানান, হোন্ডার হাওরে গরম বাতাস (আবহাওয়াজনিত পরাগায়ণ সমস্যা) এসে ধানের জমি নষ্ট করে ফেলছে। কৃষক কালু মিয়া জানান, ইসলামপুর হাওরে লেদা পোকার আক্রমণ হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. এনামুল হক বলেন, বানিয়াচংয়ে হাওরের কৃষকদের আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নাই। বিক্ষিপ্তভাবে কিছু কিছু হাওরে লেদা পোকা ও আবহাওয়াজনিত পরাগায়ণ সমস্যা হয়েছে। আমরা কৃষকদের পাশে সার্বক্ষণিক থেকে বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে পরামর্শ দিচ্ছি।


Source: kalerkantho

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen − ten =